Floating Facebook Widget

মোদিকেই প্রধানমন্ত্রী দেখতে চান ইমরান খান - Deshi News

১০ র্মাচ ২০১৯, বুধবারদেশীনিউজ: ভারতে লোকসভা ভোটের আগের দিন নিজের সেই বিখ্যাত রিভার্স সুইংটি দিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী প্রাক্তন ক্রিকেটার ইমরান খান। ভোটের আগের দিন‘শান্তির স্বার্থে’প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও তার দল বিজেপিকেই সমর্থন করলেন পাক প্রধানমন্ত্রী।


কেবল এটুকু বলেই থামেননি পাক প্রধানমন্ত্রী। তিনি ভারতে মুসলিমসহ অন্যান্য সংখ্যালঘুদের উপর লাগাতার হামলার বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।ইমরান বলেন, ‘নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী মোদীর দল জিতলে কাশ্মীর ইস্যুতে দু'দেশের মধ্যে ফের শান্তি আলোচনা শুরুর সম্ভাবনা আর তা বাস্তবায়িত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। কিন্তু ভোটে জিতে কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে কাশ্মীর সমস্যা যে তিমিরে ছিল, সেই তিমিরেই থাকবে। কারণ, দক্ষিণপন্থীদের ভয়ে কাশ্মীর সমস্যা মেটাতে কংগ্রেস এগিয়ে আসবে না। কিন্তু বিজেপির মতো কোনও দক্ষিণপন্থী দল ক্ষমতায় আসলেই কেবল এ সমস্যার সমাধান সম্ভব।’

এ প্রসঙ্গে ইমরান খান বলেন, ‘এখন ভারতে যা হচ্ছে, কখনওই তা দেখতে হবে বলে ভাবিনি। মুসলিম ভাবাদর্শের উপর আক্রমণ চলছে। পরিচিত বহু ভারতীয় মুসলিম আমাকে জানিয়েছেন, আগে ওই দেশে তারা অনেক ভালো ছিলেন। কিন্তু এখন তাদের অবস্থা ভালো নয়। ভারতে উগ্র হিন্দু জাতীয়তাবাদের উত্থানে তারা উদ্বিগ্ন।’

ইমরান খান স্পষ্ট করে বলেন, কাশ্মীর সমস্যা মেটানোর স্বার্থেই তিনি মোদিকে ফের ক্ষমতায় দেখতে চাইছেন। তা ভাষায়, ‘তারা (প্রধানমন্ত্রী মোদী ও তার দল বিজেপি) ভোটটা করাতে চাইছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহুর কায়দায়। ভয় দেখিয়ে। দেশপ্রেম আর জাতীয়তাবাদের আবেগকে উস্কে দিয়ে।’

তবে প্রধানমন্ত্রী মোদীর নেতৃত্বে এনডিএ ফের ক্ষমতায়ন এলে কাশ্মীর সমস্যা মেটার ক্ষেত্রে সংশয়টা যে থেকেই যায়, তারও ইঙ্গিত মিলেছে সাবেক এই ক্রিকেট তারকা আর একটি রিভার্স সুইংয়ে। ইমরান বলেছেন, ‘কাশ্মীর একটি রাজনৈতিক সমস্যা। সামরিক বাহিনী দিয়ে সমস্যার সমাধান করা যাবে না।’

এ নিয়ে ইমরানের বক্তব্য ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের বাসিন্দারা দ্মিুখী সমস্যায় ভুগছেন। তার ভাষায়, ‘সীমান্ত পেরিয়ে জঙ্গি প্রবেশের ফলে যেমন বিপদে পড়েন কাশ্মীরিরা, তেমনই অনুপ্রবেশকারী জঙ্গিদের নির্মূল করতে ভারতীয় নিরাপত্তাবাহিনী অভিযান চালালেও বিপদ বাড়ে কাশ্মীরিদের।’

দেশীনিউজ/পার্স টুডে


বিশ্ব সংবাদ