Floating Facebook Widget

রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে ‘পুশব্যাক’ করেছে ভারত - Deshi News

১৯ জানুয়ারি ২০১৯শনিবার ,দেশীনিউজ: ভারতে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে চলে আসতে শুরু করেছে। চলতি বছরের গোড়াতেই প্রায় তেরোশো রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে বলে জানা যায়।

কক্সবাজারের এক রোহিঙ্গা নেতার বরাত দিয়ে বিবিসি বাংলা বলছে, ভারত সরকার রোহিঙ্গাদের জোর করে মিয়ানমারে ফেরত পাঠিয়ে দিচ্ছে, এমন খবর শুনে তারা ভয়ে বাংলাদেশে চলে এসেছেন।

তবে ভারতের অন্যতম বাংলা সংবাদ মাধ্যম ‘আননন্দবাজার’ এ ঘটনাকে ‘পুশব্যাক’ বলে উল্লেখ করে বলছে, ভারতের এই পদক্ষেপ হাসিনা সরকারের জন্য ‘ভালো খবর’ নয়।

পত্রিকাটি শনিবার ‘রোহিঙ্গাদের চুপি চুপি পুশ ব্যাক করল দিল্লি’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে আনন্দবাজারের ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘বছরের গোড়াতেই প্রায় তেরোশো রোহিঙ্গা শরণার্থীকে বাংলাদেশে ‘পুশ ব্যাক’ করেছে ভারত। বাংলাদেশ পুলিশ এই শরণার্থীদের কক্সবাজারের শিবিরে পাঠিয়ে দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আনুষ্ঠানিক ভাবে মুখ খুলছেন না সাউথ ব্লকের কর্তারা। কিন্তু নতুন বছরে সদ্য জিতে পর পর তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসা শেখ হাসিনা সরকারের কাছে এটি অবশ্যই ভাল খবর নয়।’

আনন্দবাজার বলছে, রোহিঙ্গা শরণার্থী প্রশ্নে নীতি নির্ধারণ করতে পারছে না বলে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে দেশের ভেতরে ও বাইরে ঘরে বাইরে বার বার অভিযোগ উঠেছে।

এসব শরণার্থীদের ভারত সরকারের জোরপূর্বক মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্তেরও সমালোচনা করেছে জাতিসংঘের মানবাধিকার শাখাসহ অন্য মানবাধিকার সংগঠনগুলি।

‘সাউথ এশিয়া হিউম্যান রাইটস ডকুমেন্টেশন সেন্টার’-এর কর্মকর্তা রবি নায়ার সম্প্রতি অভিযোগ করে বলেছেন, ‘ভারতে বসবাসকারী রোহিঙ্গাদের জীবন দুর্বিষহ করে দিয়েছে সরকার।’

সাম্প্রতিক এই ‘পুশব্যাক’ ঘটনার পর সমালোচনা আরও বাড়বে বলেই মনে করছে সংবাদ মাধ্যমটি।

আনন্দবাজার আরো বলছে, ‘নয়াদিল্লির পক্ষ থেকে ঘরোয়া ভাবে জানানো হয়েছে, গোটা বিষয়টি ভারতেরও গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। কেন্দ্রের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এ দেশে প্রায় ৪০ হাজার রোহিঙ্গা অবৈধ ভাবে বসবাস করছেন। সব চেয়ে বেশি রোহিঙ্গা রয়েছেন জম্মু ও কাশ্মীরে। দ্বিতীয় স্থানে তেলঙ্গানা।’

এদিকে জম্মুর বিজেপি দলের অভিযোগ, ওই রাজ্যে অন্তত ১৫-২০ হাজার রোহিঙ্গা পরিচয় লুকিয়ে বাস করছেন। এসব শরণার্থীদের কেউ কেউ নাকি কাশ্মীরের সেনা ছাউনিতে হামলার সঙ্গে জড়িত, অভিযোগ বিজেপির।

জঙ্গি কার্যকলাপে যুক্ত থাকার সন্দেহে ইতিমধ্যে সে রাজ্যে নাকি একাধিক রোহিঙ্গাকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে।

সবশেষে আনন্দবাজার বলছে, ‘দেশের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অবিলম্বে এসব রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে পাঠানোরও দাবি তুলেছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দল।’

দেশীনিউজ/আবদুল মোতালেব মজুমদার/করসপনডেন্ট


এক্সক্লুসিভ