Floating Facebook Widget

১ অক্টোবর থেকে চলা সরকারের নিষেধাজ্ঞা মেনে চলছে হাতিয়ার জেলেরা - Deshi News

১১ অক্টোবর ২০১৭,বুধবার,দেশীনিউজমা ইলিশ মাছ রক্ষায় ১ অক্টোবর থেকে চলা সরকারের নিষেধাজ্ঞা মেনে চলছে হাতিয়ার জেলেরা। কিন্তু এখন পর্যন্ত সরকারের বরাদ্ধকৃত বিশেষ খাদ্য সহায়তা না পেয়ে ক্ষুব্ধ জেলেরা। কবে নাগাদ এ খাদ্য সহায়তা পৌঁছবে জেলেদের কাছে তা জানেনা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা। অন্যদিকে জেলেদের জন্য বরাদ্ধকৃত চাল ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বারদের সহযোগিতায় ভাগবাটোয়ারা করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার অধিকাংশ মানুষ ইলিশ মাছ ধরার সাথে জড়িত। এখানকার অর্থনীতি মূলত ইলিশ মাছ নির্ভর। মা ইলিশ মাছ রক্ষায় ১ অক্টোবর থেকে চলা নিষেধাজ্ঞার ফলে স্থবির হয়ে পড়েছে এখানকার অর্থনীতি। জন-মানব শূন্য হাট-বাজার। জেকে বসেছে এখানকার বেকারত্ব।

জেলেরা বলছেন মাছ ধরা বন্ধ থাকায় বেকার হয়ে পড়েছে হাতিয়ার জেলেরা। এখন পর্যন্ত সরকারী খাদ্য সহায়তা পৌঁছায়নি জেলেদের কাছে। জেলে পল্লীগুলোতে চলছে খাদ্য সংকট। 

জেলেরা বলছেন জেলেরা সরকারের আইন মেনে চলছে। সরকার খাদ্য সহায়তা না দিলে পেটের জ্বালায় আইন অমান্য করে আবার নদীতে নামতে বাধ্য হবে জেলেরা ।

জেলেরা তাদের জন্য বরাদ্ধকৃত চাল ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বারদের সহযোগিতায় দলীয় নেতাকর্মীদের ভাগবাটোয়ারা করে নিয়ে যাওয়ার লিখিত অভিযোগ জানিয়েছে হাতিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর।

হাতিয়া হরনী ইউনিয়নের প্রশাসক মুশফিকুর রহমান বলেন, জেলেদের চাল দেয়ার ক্ষেত্রে ত্রুটি-বিচ্যুতি আছে। মৎস্য কর্মকর্তারা স্থানীয় জন প্রতিনিধিদের সাথে সমন্বয় করলে এ ধরনের ঘটনা এড়ানো যেত।

হাতিয়া উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মৎস্য কর্মকর্তামো: ফরিদ উদ্দিন নিশ্চিত করে বলতে পারেননা,কবে নাগাদ জেলেরা পাবে সরকারী খাদ্য সহায়তা। তিান আরও বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বারদের দেয়া তালিকানুযায়ী দেয়া হয় জেলেদের চাল । এ ক্ষেত্রে কোন অনিয়ম হলে খতিয়ে দেখা হবে।

দেশীনিউজ/হাতিয়া, নোয়াখালী প্রতিনিধি/তাজুল ইসলাম তছলিম   

জেলা সংবাদ