Floating Facebook Widget

শিবালয়ে ইলিশ মজুদ, ১২১ জনের দণ্ড - Deshi News

১০ অক্টোবর ২০১৭,মঙ্গলবার, দেশীনিউজ শিবালয় উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তর ও পাটুরিয়া নৌ-থানা পুলিশের অভিযানে মঙ্গলবার এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ১২১ জনের জেল-জরিমানা হয়েছে।

চোরা শিকারীদের ইলিশ মজুদরোধে নদী তীরবর্তী জাফরগঞ্জ বাজারে জনৈক তোতা মিয়ার বরফকল জব্দ করা হয়। বরফ দিয়ে মাছ রাখার জন্য সোলা নির্মিত বিশেষ বাক্স স্থানীয় হাট-বাজারে প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে। এ বাক্সে রাখা মাছ চরাঞ্চলে মাটির নিচে লুকিয়ে রাখা হচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

নৌ-পুলিশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিনূল ইসলাম জানান, ১ থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত এ অভিযান চলবে। মঙ্গলবার আটক ১০ জনকে ভ্রাম্যমান আদালতে সোপর্দ করা হবে। অভিযান সফল করতে প্রশাসন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে।

উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা রফিকুল আলম জানান, চলতি অভিযানে আটক প্রায় ৫ লাখ মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল জব্দ করে পুড়িয়ে ফেলা হয়। বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে ইলিশ মজুদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা হিসেবে বরফকল জব্দ করা হচ্ছে। উদ্ধারকৃত ইলিশ স্থানীয় এতিমখানা-মাদ্রাসা, মন্দির, গীর্জাসহ দরিদ্র লোকজনকে দেয়া হচ্ছে ।

শিবালয় ইউএনও কামাল মোহাম্মদ রাশেদ জানান, ইলিশ নিধনের অভিযোগে আটককৃতদের কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড দেয়া হয়।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, মানিকগঞ্জের শিবালয়, দৌলতপুর ও হরিরামপুর উপজেলার পদ্মা-যমুনা বক্ষে অন্তত দেড়শ’ বর্গ কিলোমিটার এলাকায় ইলিশ বিচরণের ক্ষেত্র রয়েছে। একশ্রেণির জেলে ও মওসুমী শিকারী ইলিশ ধরা আইন অমান্য করে আসছে। এদের বিরুদ্ধে স্থানীয় প্রশাসন কঠোর ব্যবস্থা নিলেও অনেকেই ধরা-ছোঁয়ার বাইরে থাকছে। 

দেশীনিউজ/মাহবুবুল আলম

অর্থ ও বাণিজ্য