Floating Facebook Widget

আমাদের দেশে মায়ের গর্ভের সন্তানও এখন আর নিরাপদ নয় - Deshi News

দেশিনিউজবিডি.কম,

৩ আগস্ট ২০১৫,সোমবার,বিল্লাল হোসেন,ঢাকাঃ  বাংলার মাটিতে মায়ের গভের্র সন্তান আজ নিরাপদ নয়। বাঙালির আড়াই হাজার বছরের ইতিহাসে যোগ হলো এক নতুন দৃষ্টান্ত। সাম্প্রতিক আপনারা মিডিয়াতে দেখেছেন জন্মেও মাস খানেক আগে মায়ের গর্ভে গুলিবিদ্ধ হল বেবি অব নাজমা,নামটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ এর ডাক্তারদের দেওয়া। ছাত্রলীগের গোলাগুলির শিকার বলে তাকে বুলেট নাজমাও বলা যেতে পারে। মাগুরা শহরের দোয়ারপাড় কালিগড় পাড়ায় গত বৃহস্প্রতিবার (২৩ জুলাই) ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংর্ঘষের সময় গুলিবিদ্ধ হন আন্তসত্তা নাজমা বেগম (৩৫) গুলি মায়ের পেটে শিশুর শরীর এফোঁড় ওফোর করে পেলে। গুলি ও বোমায় আহত নাজমার চাচা শশুর পরদিন মারা যান।

বাংলাদেশে গত এক বছরে যত কথিত ক্রসফায়ার হয়েছে,তাদের মধ্যে যর্থাথ ও নিখাদ ক্রসফায়রে শিকার বেবি অব নাজমা বেগম। অনান্য সকল ক্রসফায়ার মানুসের সন্দেহের অবকাশ থাকলেও বেবি অব নামজার ঘটনাটিতে সন্দেহের অবকাশ বিন্দু মাত্র নেই। গুলাগোলি ছাত্রলীগের দুই পক্ষের হয়েছে না তিন পক্ষের মধ্যে হয়েছে তা কোন বিবেচ্য বিষয় নয়। বাস্তবতা হল আমাদের দেশে সন্ত্রাস প্রতিটি জনপদ পাড়া মহল্লায় বিস্তৃত হয়েছে। কি অপরাধ ছিল? বেবি অব নাজমার! আজ জাতির কাছে প্রশ্ন। ক্ষুদ্র শরীরে চারটি ক্ষতস্থান ২১টিসেলাই পড়েছে নাকি ২০ টি সেলাই দেওয়া হয়েছে তা কোন ব্যাপার নয়,জন্মের আগে আমরা তাকে জখম করেছি। ডাক্তারদের পুরো টিম কাজ করেছে তার পিছনে। কি হবে মামলা করে,কারণ আমাদের দেশে আইনের কোন শাসন নেই। মানবধিকার কমিশন নিরব ভুমিকায়। আমাদেরদেশের রাজনৈতীক দলের ভ’মিকা কি?  কোনো অপদেবতা অদৃশ্য স্থান থেকে বাংলার বুকে বুলেট ছুড়বে আর সবাই আমরা বসে বসে তা উপভোগ করবো এই কি ১৬কোটি মানুষের নিয়তি? আমার জানা মতে এমন নির্মম ঘটনা বিশ্বের আর কোথায় ঘটেনি। ছাত্রলীগের উচিৎ এই ঘটনার জন্য গিনেচ বুকে নাম লেখানো। বেবি অব নাজমা সুস্থ্য হয়ে মায়ের বুকে পিরে যাক এটাই কামনা করি।

সম্পাদকীয়